ক্রিয়েটিভ ক্লাসরুম এন্ড চাইল্ড প্রটেকশন

ব্রিটিশ  কাউন্সিলে অনুষ্ঠিত ফোরসির ক্রিয়েটিভ ক্লাসরুম এন্ড চাইল্ড প্রটেশন শীর্ষক কর্মশালা শেষে ফটোসেশন

 

মানুষ গড়ার কারিগর দেশের শিক্ষক-সমাজ। তাদের মধ্যে যারা আগামীর ভবিষ্যত শিশুদের নিয়ে কাজ করেন তাদের কথা নতুনভাবে বলার কিছু নেই। তাদের নিরলস পরিশ্রমে, তাদের হাত ধরেই তৈরি হয়েছে, হচ্ছে দেশ-জাতির কর্ণধার। শিক্ষার প্রাথমিক পর্যায়ে নানা ঘাটতির মধ্য দিয়েও অনেকে উঠে এসেছেন। নানা প্রতিবন্ধকতা হয়তো কোনো প্রতিভাবানের মৃত্যু হয়েছে। হয়তো আমদের অনেক ক্লাসরুমের দৃশ্য একেবারে শিশু উপযােগি নয়। অনেকক্ষেত্রে হয়তো শ্রেনীকক্ষে আসতে শিশুরা ভয় পায়। অথচ শিক্ষা নিয়ে যারা কাজ করেন, ভাবেন তারা বয়সানুযায়ী শিশুদের সুন্দর পাঠদানের নানা দিক দেখিয়ে গেছেন। কীভাবে শিশুকে আনন্দের মাধ্যমে সৃজনশীল উপায়ে পড়াতে হবে- তার নানা উপায় রয়েছে। বিদ্যালয়, শ্রেনীক্ষক সৃজনশীল করতে শিক্ষকের ভুমিকা সর্বাগ্রে।

 

১৪ জুন ২০১৯ ব্রিটিশ কাউন্সিলে অনুষ্ঠিত ফোরসির ক্রিয়েটিভ ক্লাসরুম এন্ড চাইল্ড প্রটেশন শীর্ষক কর্মশালা শেষে সার্টিফিকেট বিতরণ। অতিথি- ঢাবি শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের পরিচালক-সৈয়দা তাহমিনা আখতার, সিসিমপুর বাংলাদেশের প্রধান- মোহাম্মদ শাহ আলম, ব্রিটিশ কাউন্সিলের স্কুল বিভাগের প্রধান এমএইচ তানসেন, ঢাবি শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের সহযােগী অধ্যাপক- তাপস কুমার বিশ্বাস, সেভ দ্য চিলড্রেনের সিনিয়র ম্যানেজার এডুকেশন মোয়াজ্জেম হোসেন ও নেপের সহকারি বিশেষজ্ঞ মুহম্মদ সালাউদ্দিন।

অন্যদিকে শিক্ষা-গুরুদের হাতেই রয়েছে আমাদের শিশুদের নিরাপত্তার ভার। আমরা যখন দেখি শিক্ষক কতৃক শিক্ষার্থী যে কােনােভাবেই হোক নির্যাতিত হয়েছেন, শিক্ষার্থীর নিরাপত্তার বিঘ্ন ঘটায় এমন কোনো কাজ শিক্ষকদের দ্বারা হয়েছে তখন শিউরে উঠি। সাম্প্রতিক সময়সহ এর আগেও এমন কিছু ঘটনা জাতীয়ভাবে আলোচিত হয়েছে। আমাদের কষ্ট দিয়েছে।
এসব বিষয়ের ভাবনা থেকেই এ কর্মশালা ‘ক্রিয়েটিভ ক্লাসরুম এন্ড চাইল্ড প্রটেকশন’।

শিশুর সৃজনশীলতা বিকাশে স্বেচ্ছাসেবি উদ্যােগ ফোরসি তথা চাইল্ড সেন্ট্রিক ক্রিয়েটিভ সেন্টারের আয়োজনে সঙ্গী হয়েছেন দেশের শিক্ষা ও গবেষণার সবোচ্চ প্রতিষ্ঠান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইআর) প্রি-প্রাইমারী এন্ড প্রাইমারী এডুকেশন বিভাগ। ব্রিটিশ কাউন্সিলে অনুষ্ঠিতব্য এ কর্মশালা থেকে যদি একজন শিক্ষকও উপকৃত হন, শিক্ষকের প্রশিক্ষণের কারণে যদি একজন শিক্ষার্থীও তার সুফল পায় তাতেই আমাদের শ্রম সার্থক। এখানে প্রশিক্ষক হিসেবে যারা রয়েছেন প্রত‌্যেকেরই ব্যাকগ্রাউন্ড আইইআর। যারা আইইআরে এবং বাইরে শিক্ষার বিভিন্ন পর্যায়ে কাজ করছেন, শিক্ষক-প্রশিক্ষণে দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতাসম্পন্নন সর্বোপরি দেশে ও বিশ্বে শিক্ষার সর্বাধুনিক ব্যবস্থা সম্পর্কে জ্ঞান রাখেন। একইসঙ্গে শিশুর বয়স, চাহিদা ও তাদের শিক্ষা নিয়ে গবেষণা করছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *